কাঁচা ছোলা খাওয়ার উপকারিতা - Benefits of eating raw peanuts

কাঁচা ছোলা খাওয়ার উপকারিতা - Benefits of eating raw peanuts
ছোলা

কাঁচা ছোলার গুণ সম্পর্কে আমরা সবাই জানি। প্রতি ১০০ গ্রাম খাদ্যোপযোগী ছোলায় আমিষ প্রায় ১৮ গ্রাম, কার্বোহাইড্রেট প্রয় ৬৫ গ্রাম, ফ্যাট মাত্র ৫ গ্রাম, ২০০ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম, ভিটামিন ‘এ’ প্রায় ১৯২ মাইক্রোগ্রাম এবং প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন বি-১ ও বি-২ আছে। ডাল হিসেবে ছোলা পুষ্টিকর একটি ডাল। এ ছাড়া ছোলায় বিভিন্ন প্রকার ভিটামিন, খনিজ লবণ,
ম্যাগনেশিয়াম ও ফসফরাস রয়েছে। এ ছাড়া রয়েছে আরো অনেক উপকার। উচ্চমাত্রার প্রোটিনসমৃদ্ধ খাবার ছোলা। ছোলাতে প্রচুর পরিমাণে ফলেট এবং খাদ্যআঁশ আছে। কাঁচা, সেদ্ধ বা তরকারি রান্না করেও খাওয়া যায়। কাঁচা ছোলা ভিজিয়ে, খোসা ছাড়িয়ে, কাঁচা আদার সাথে খেলে শরীরে একই সাথে আমিষ ও অ্যান্টিবায়োটিক যাবে। আমিষ মানুষকে শক্তিশালী ও স্বাস্থ্যবান বানায়। আর  অ্যান্টিবায়োটিক যেকোনো অসুখের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে। এটি মলিবেডনাম এবং ম্যাঙ্গানিজের চমৎকার উৎস। সেই সাথে আছে আমিষ, ট্রিপট্যোফান, কপার, ফসফরাস এবং আয়রন। অস্ট্রেলিয়ান গবেষকরা দেখিয়েছেন, খাবারে
ছোলা যুক্ত করলে টোটাল কোলেস্টেরল এবং খারাপ কোলেস্টেরলের পরিমাণ কমে যায়। ছোলাতে দ্রবণীয় এবং অদ্রবণীয় উভয় ধরনের খাদ্য আঁশ আছে যা হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমিয়ে দেয়। আঁশ, পটাসিয়াম, ভিটামিন ‘সি’ এবং ভিটামিন বি-৬ হৃদযন্ত্রের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে সাহায্য করে। ফলে হৃদরোগের ঝুঁকি কমে যায়। এর ডাল আঁশসমৃদ্ধ যা রক্তে কোলেস্টেরলের পরিমাণ কমাতে সাহায্য করে। এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, যারা প্রতিদিন ৪০৬৯ মিলিগ্রাম ছোলা খায় হৃদরোগ থেকে তাদের মৃত্যুর ঝুঁকি ৪৯% কমে যায়।

ছোলার কিছু চমকপ্রদ গুণাগুণ:

• ছোলা হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়,
• রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে,
রক্ত চলাচল বাড়ায়,
• ক্যান্সার রোধ করে,
• কোলেস্টেরল কমায়,
• কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে,
• ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখে,
• যৌনশক্তি বৃদ্ধি করে,
• রক্তের চর্বি কমায়,
• অস্থির ভাব দূর করে,
• রোগ প্রতিরোধ করে,
• জ্বালাপোড়া দূর করে,
• মেরুদণ্ডের ব্যথা দূর করে,

এ ছাড়া এতে ভিটামিন ‘বি’ ও আছে পর্যাপ্ত।
ভিটামিন ‘বি’ মেরুদণ্ডের ব্যথা, স্নায়ুুর দুর্বলতা কমায়। ছোলা অত্যন্ত পুষ্টিকর। এটি আমিষের একটি উল্লেখযোগ্য উৎস। এতে আমিষের পরিমাণ গোশত বা মাছের পরিমাণের প্রায় সমান। তাই খাদ্যতালিকায় ছোলা থাকলে মাছ-গোশতের প্রয়োজন পড়ে না। ত্বকে আনে মসৃণতা। কাঁচা ছোলা ভীষণ উপকারী। তবে ছোলার ডালের তৈরি ভাজা-পোড়া খাবার যত কম খাওয়া যায় ততই ভালো। সাবানের মতো ছোলা শরীরের চামড়া পরিষ্কার করে। ছোলা বা মটর দানার বেসন পানিতে ভিজিয়ে গোসলের আগে শরীরে মাখলে শরীর থেকে ময়লা পরিস্কার হয়ে যায়। ছোলা ত্বকের লাবণ্য ফিরিরে আনে। ছোলার খোসা সেদ্ধ করে সেই সেদ্ধ পানি বার বার খেলে পিত্ত রোগ ভালো হয়। মুখে ব্রণ বা মেছতা হলে ছোলা ভিজিয়ে বেটে মুখে লাগান। এতে ব্রণ দূর হয় এবং মেছতার দাগ মুছে যায়। এছাড়া ছোলা বেটে মুখে ব্যবহার করলে ত্বকের সৌন্দর্য ও টান টান ভাব ফিরে আসে। বদহজমের কারণে অনেকের গায়ের রঙ কালো হয়ে যায়। এ ক্ষেত্রে পরিষ্কার পানিতে ছোলা সেদ্ধ করে সেই পানি খেলে বদহজম থাকবে না এবং গায়ের কালচে ভাবটি ও কেটে যাবে।

আরো পড়ুন...

Previous
Next Post »