জিহ্বা পুড়ে গেলে করণীয় - Do burnt tongue

গরম কিছু খেতে গেলে সামান্য অসর্তকতায় জিহবা পুড়ে যাবার মতো চরম দুর্গতি ঘটে মাঝে মাঝে আমাদের। তবে এই পুড়ে যাওয়াকে খুব সহজে সারিয়ে তোলা যায়।
জিহ্বা পুড়ে গেলে করণীয় - Do burnt tongue
জিহ্বা পুড়ে গেলে করণীয় - Do burnt tongue
জিহ্বা পুড়ে গেলে করণীয়:
(১) পুড়ে যাওয়া জিহ্বা জ্বালাপোড়া কমাতে বরফের টুকরো অনেক ভাল কাজ করে। এ ছাড়া মুখের মধ্যে ঠাণ্ডা পানি নিয়ে কিছুক্ষণ রাখা যেতে পারে। এর ফলে জ্বালাপোড়া কমবে এবং জিহ্বার কোষগুলোকে আগের অবস্থায় ফিরতে সাহায্য করবে। অথবা জিহ্বা পুড়ে গেলে মুখ গোল করে মুখ দিয়েই শ্বাস নিতে থাকুন। এতে মুখে ঠাণ্ডা বাতাস ঢুকবে। সেই সাথে আস্তে আস্তে স্বস্তি ফিরে আসবে।

(২) জিহ্বা পুড়ে যাওয়ার সমস্যা সমাধানে দ্রুত মুক্তি পেতে দই অনেক ভাল কাজ করে। দই মুখের মধ্যে নিয়ে কয়েক সেকেন্ড রাখুন তারপর খেয়ে নিন। দিনে কয়েকবার এভাবে দই খেলে দ্রুতই জ্বালাপোড়া থেকে মুক্তি পাবেন। মধুতে রয়েছে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল
ও প্রদাহরোধী উপাদান, যা জ্বালাপোড়া ভাব ও প্রদাহ কমাতে সাহায্য করে। সেই সাথে পরবর্তীতে মুখে ব্যাকটেরিয়ার বৃদ্ধি প্রতিহত করতে ব্যাপক ভূমিকা রাখে।

(৩) ১ঃ৮ অনুপাতে লবণ হাল্কা উষ্ণ পানির সাথে মিশিয়ে কিছুক্ষণ মুখের মধ্যে নাড়াচাড়া করুন। জ্বালাপোড়া এবং ব্যাথা ভাল হবে। লবণ-পানি হচ্ছে একটি প্রাকৃতিক এন্টিসেপ্টিক যা প্রদাহ জনিত জ্বালাপোড়া এবং ব্যাথা কমাতে সাহায্য করে। এছাড়া লোভেরা হচ্ছে ব্যাথা এবং জ্বালাপোড়া নাশক একটি প্রাকৃতিক উপাদান। এই উদ্ভিদটি আপনার জিহ্বার ব্যথা কমাবে এবং জিহ্বার ভেতরে একটি ঠাণ্ডা ঠাণ্ডা ভাব সৃষ্টি করবে।

(৪) কিছুদিন বেশি গরম কোন খাবার খাবেন না। বেশি গরম খাবার আপনার জিহ্বার যন্ত্রণা বৃদ্ধি করবে। তাই জিহ্বা ভাল না হওয়া পর্যন্ত বেশি গরম খাবার খাওয়া থেকে বিরত থাকুন।এই সময় এসিডিটিক কোন খাবার খাওয়া উচিৎ নয়। কারণ এসিডিটিক খাবার জিহ্বার
পোড়া স্থানে যন্ত্রণা সৃষ্টিতে সাহায্য করে। এছাড়াও পর্যাপ্ত ঠান্ডা পানি পান করুন। ঠান্ডা পানি আপনার জিহ্বাকে শীতল রাখবে এবং পর্যাপ্ত ঠান্ডা পানি পান করুন। ঠান্ডা পানি আপনার জিহ্বাকে শীতল রাখবে।

More...
Previous
Next Post »