দৈনিক কত ঘণ্টা ঘুম প্রয়োজন, কম ঘুমের ক্ষতি।

দৈনিক কত ঘন্টা ঘুম প্রয়োজন
আহার, নিদ্রা, বিশ্রাম, মনের শান্তি এসব সুস্থতার জন্য দরকার। আর একজন সুস্থ স্বাভাবিক মানুষের জন্য দৈনিক কত ঘণ্টা ঘুম দরকার এটা নিয়ে নানা মত রয়েছে। মানুষের শরীরটাই চলে এক বিশাল কম্পিউটারের মতো। মানব শরীরে হার্ট, ফুসফুস, লিভার, কিডনি, ব্রেইন এর কর্মক্ষমতা যদি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করা যায় তাহলে দেখা যাবে একটি সুক্ষ্ম অত্যাধুনিক সফটওয়ারের মতো স্বয়ংক্রিয়ভাবে মানব শরীরের এসব অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ চলছে বিরামহীনভাবে।
তাই মানব শরীরকে যথাযথভাবে ফাংশন করতে হলে প্রয়োজন নিয়মিত বিশ্রাম, ঘুম। প্রতিদিন কমপক্ষে ৬-৭ ঘণ্টা ঘুম প্রয়োজন। আর পরিমিত ঘুম হলে শরীর, মন, মস্তিষ্ক স্বাভাবিকভাবে কাজ করার জন্য প্রস্তুত হয়। ফলে কাজের পারফরম্যান্স বা আউটপুট ভালো হয়।
এ ছাড়া গবেষণায় দেখা গেছে, যারা পরিমিত ঘুমের পাশাপাশি প্রত্যুষে ঘুম থেকে ওঠেন, জগিং করেন, প্রার্থনা করেন, তাদের শারীরিক ও মানসিক সমস্যা কম হয়, কাজের গতি বাড়ে ও আউটপুট ভালো হয়। তাই দৈনিক অন্তত: ৬-৭ ঘণ্টা ঘুমাতে চেষ্টা করুন সুস্থ থাকুন।

দৈনিক কত ঘণ্টা ঘুম প্রয়োজন, কম ঘুমের ক্ষতি। How many hours of daily sleep you need, less sleep loss. ঘুমের প্রয়োজনীয়তা, একজন সুস্থ মানুষের কত ঘন্টা ঘুমানো উচিত, রাত কয়টায় ঘুমানো উচিত, ঘুমানোর সঠিক নিয়ম, দৈনিক ঘুম, একজন সুস্থ মানুষের কতটুকু ঘুমের প্রয়োজন, ঘুমের উপকারিতা, কতটুকু ঘুম দরকার, ঘুম কম হলে কি ক্ষতি হয়, রাতে না ঘুমালে কি ক্ষতি হয়, কম ঘুমানোর অপকারিতা, ঘুম না হলে কি রোগ হয়, দিনে ঘুমানোর অপকারিতা, ঘুম না হওয়ার কারণ ও প্রতিকার, রাতে না ঘুমানোর অপকারিতা, কম ঘুমের প্রভাব,
ঘুম

কম ঘুমের ক্ষতি
শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা এবং শরীরকে তরতাজা রাখতে একজন প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষের প্রতিদিন অন্তত ৬-৭ ঘণ্টা ঘুমের প্রয়োজন।

পর্যাপ্ত না ঘুমালে শরীরে নানা রোগ-ব্যাধি বাসা বাধতে পারে। কম ঘুম আপনার দৈনন্দিন কাজেও প্রভাব ফেলে। 
  
আপনার যদি ঘুমের সমস্যা থাকে তাহলে দেরি না করে আজই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

এবার আসুন জেনে নেওয়া যাক কম ঘুমালে শরীরের ঠিক কি কি সমস্যা হতে পারে।
১) কম ঘুমের কারণে হ্যালুসিনেশনের সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে।
২) সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা কমতে শুরু করে।
৩) পর্যাপ্ত পরিমাণ ঘুম না হলে হার্টের সমস্যা বহুগুণে বৃদ্ধি পায়।
৪) ঘুম কম হলে বাড়তে পারে মানসিক চাপ।
৫) হজমের সমস্যা বৃদ্ধি পায়।
৬) ডায়বেটিসের ঝুঁকি বহুগুণে বৃদ্ধি পায়।
৭) দিনের পর দিন পর্যাপ্ত পরিমাণ না ঘুমালে কোষ্ঠকাঠিন্য বা অর্শরোগের ঝুঁকি অনেকটাই বেড়ে যায়।
৮) পর্যাপ্ত পরিমাণ না ঘুমানো ত্বকের জন্যও বেশ ক্ষতিকর। দিনের পর দিন কম ঘুমালে চোখের নিচে কালো দাঁগ পড়ে যায়।
Previous
Next Post »