কলা খেয়ে খোসা ফেলে দেন? তার গুণ জানলে আর ফেলবেন না।

কলা খেয়ে খোসা ফেলে দেন? তার গুণ জানলে আর ফেলবেন না।

Who ate banana peel? Don't know his qualities.

সহজে পুষ্টি পেতেই হোক আর ঝটপট পেট ভরানোর কাজেই হোক, আজও আমাদের অন্যতম ভরসা কলা। চিরপরিচিত এই ফলটি পাওয়া যায় পর্যাপ্ত, অন্য ফলের চেয়ে দামেও সস্তা আর একই সঙ্গে পুষ্টির ভাঁড়ার! যে কোনও ডায়েট প্ল্যানে তাই একটা বাঁধাধরা জায়গাই রয়েছে কলার। এ পর্যন্ত সবাই জানি। যেটা অনেকেই খোঁজ রাখেন না, সেটা হল কলার মতো কলার খোসাও কিন্তু দুর্দান্ত উপকারী! বিশেষ করে রূপচর্চার নানা কাজে তো কলার খোসা বলতে গেলে অতুলনীয়! কলার খোসায় প্রচুর প্রয়োজনীয় মিনারেল আর পর্যাপ্ত অ্যান্টি অক্সিডান্ট রয়েছে। তাই সস্তায় রূপচর্চা করতে হলে এবার থেকে আর কলা খেয়ে খোসাটা ফেলে দেবেন না।

দাঁতের যত্নে
বিশ্রী হলদে ছোপ ধরেছে দাঁতে? স্কেলিংয়ের পিছনে গুচ্ছের টাকা খরচ না করা থেকে আপনাকে বাঁচাতে পারে কলার খোসা। খোসার ভিতরদিকের সাদা অংশটা দাঁতে প্রতিদিন খানিকক্ষণ ঘষুন। এক সপ্তাহ পর মুক্তোর মতো দাঁত দেখে নিজেই চমকে যাবেন।

আঁচিল কমাতে
যাঁদের ঘন ঘন আঁচিল হয়, তাঁরাও কলার খোসা থেকে উপকার পাবেন। আঁচিলের উপর কলার খোসার সাদা অংশটা ঘষুন। তারপর একটুকরো খোসা আঁচিলের উপর চাপা দিয়ে গজ ব্যান্ডেজ দিয়ে মুড়ে দিন। কিছুদিন করলেই চিরতরে বিদায় নেবে আঁচিল।

ব্রণের সমস্যায়
ব্রণ লাল হয়ে ফুলে আছে, সঙ্গে ব্যথাও রয়েছে? ব্রণর উপর কলার খোসা ঘষুন এক সপ্তাহের মধ্যে হাতেনাতে ফল পাবেন।

বলিরেখার উপদ্রবে
কলা ত্বককে আর্দ্র আর পুষ্টিগুণে ভরপুর রাখে। ফলে নিয়মিত কলা যাঁরা খান, তাঁদের বলিরেখা বা সূক্ষ্ম রেখার সমস্যা এমনিতেই কম হয়। বাড়তি উপকার পেতে একটা কলার খোসা শিলনোড়া বা মিক্সারে বেটে নিন। তাতে একটা ডিমের কুসুম মিশিয়ে পেস্টের মতো তৈরি করুন। এই পেস্টটা মুখে মেখে পাঁচ মিনিট রেখে ঠান্ডা জলে ধুয়ে নিন। ত্বক অসম্ভব নরম আর মসৃণ হয়ে যাবে।

মশার কামড়
হাত-পায়ে মশার কামড়ের ফলে চুলকে চুলকে লাল হয়ে ফুলে উঠেছে? আপনাকে জ্বালা আর চুলকানি থেকে মুক্তি দিতে পারে কলার খোসা! কামড়ানোর জায়গাটায় কলার খোসা ঘষুন, দেখতে দেখতে জ্বালা আর চুলকানি দুটোই কমে যাবে, ত্বকও শীতল হবে।
Previous
Next Post »