বাবার হাতের স্মৃতি হীরের চেয়েও মূল্যবান ~ WriterMosharef

বাবার হাতের স্মৃতি হীরের চেয়েও মূল্যবান

বাবার হাতের স্মৃতি হীরের চেয়েও মূল্যবান, বাবার স্মৃতি, হীরের টুকরো, বাবার স্মৃতিচারণ, হীরের পুতুল, বাবার স্মৃতি কথা,  হীরার খনি, হীরের হার, হীরের গ্রহ, বাবাকে নিয়ে কষ্টের কথা, বাবাকে নিয়ে কিছু কথা, বাবার কষ্টের কথা, বাবাকে নিয়ে লেখা কিছু কথা, বাবাকে নিয়ে পোস্ট, মূল্যবান, The memory of a father's hand is more valuable than diamonds, short story, WriterMosharef

Hi I'm WriterMosharef

বাবাকে অনেক বলে-কয়ে একটা স্মার্টফোন কিনিয়েছি। বর্তমান যুগ হচ্ছে প্রযুক্তির যুগ। আমার সেকেলে বাবা কি আর এসব বুঝে?

আজকাল হাতে হাতে স্মার্টফোন, ল্যাপটপ এসব না থাকলে যুগের সাথে তাল মিলিয়ে চলা যায়? বন্ধুদের সামনে বাটন ফোন নিয়ে ঘুরাঘুরি করতে হয়, লজ্জায় কোন প্রয়োজন ছাড়া মোবাইল পকেট থেকে বের করি না। কাউকে কল করতে গেলে মনে হয়, কলটা ওই
প্রান্ত থেকে কেউ করুক। আজকাল কথায় কথায় ছবি তুলা, হাত উঁচিয়ে সেলফি তুলা একটা ফ্যাশন হয়ে দাঁড়িয়েছে। অথচ আমার এই আদিমকালের সেটটাতে ফ্রন্ট ক্যামেরা থাকা তো দূরের কথা, ব্যাক ক্যামেরাটাই রীতিমতো আন্ধা টাইপের।

আরেহ! বন্ধুদের থেকে নোটে- টোটের ছবি তুলতেও তো ক্যামেরা লাগে নাকি?

যেখানে বন্ধুরা দল বেঁধে পাবজি খেলা কিংবা পোকিমন গো নিয়ে ব্যস্ত, সেখানে আমাকে বাটন টিপে টিপে স্নেক জেনজিয়া অথবা ডাইস গেম খেলতে হয় বাচ্চাদের মতো। সবাই ফেসবুক আইডি খুলে রীতিমতো তিনটা চারটা গার্লফ্রেন্ড জুটিয়ে চুটিয়ে প্রেম করছে আর আমি কিনা একটা আইডিই খুলতে পারলাম না। আমি যে
যুগ থেকে কতটা পিছিয়ে ডাইনোসরের যুগে বাস করছি সেটা বাবাকে উদাহরণসহ সংজ্ঞা দিয়ে বুঝানোর পর অবশেষে একটা স্মার্টফোন কিনে দিয়েছে।

তাও যদি দামী হতো! সেকেন্ডহ্যান্ড সেট, লো রেজুলেশন ক্যামেরা এমনকি ফোন স্টোরেজ পর্যন্ত কম।

থাক, নাই মামার চাইতে কানা মামা ভালো এটা ভেবেই মনকে স্বান্তনা দিয়ে রেখেছি।

সন্ধ্যাবেলা বাসায় ফিরে দেখি বাবা ঝিম মেরে বসে আছে। আমি অবাক হয়ে বললাম, এভাবে বসে আছ কেন বাবা?

বাবা ক্লান্ত মুখে বললেন, শরীরটা ভালো লাগছে না রে বাবা।

তোমার রবীন্দ্রসংগীত শুরু হয়ে গেছে, শুনবে না?

বাবা বিড়বিড় করে কি যেন বলে উঠে চলে গেলেন পাশের রুমে।

আমি ভাবলাম রেডিওটায় চ্যানেলটা আমিই ছেড়ে দিই।

সন্ধ্যা ছটায় গান এফ এম এ বাবার প্রিয় রবীন্দ্র সংগীতানুষ্ঠান শুরু হয়।

এখন সাড়ে ছটা বাজে, অনুষ্ঠান শুরু হয়ে গেছে। পুরোনো এই রেডিওটায় বাবা কি খুঁজে পায় কে জানে! ঠিকমতো সাউন্ড বের হয় না, ঘর্ঘর আওয়াজ করে, তবুও সেটাকে থাপড়াথাপড়ি করে কানে লাগিয়ে গান বাজনা শোনার চেষ্টা করেন বাবা। কতবার বিরক্ত হয়ে বলেছি, বাবা, এবার এটা বিক্রি করে নতুন একটা কিনে নাও।

কিন্তু বাবার সেই এক কথা! আই  এ পাশ করার পর তার বাবা অনেক আদর করে তাকে এটা কিনে দিয়েছিলেন, বাবার হাতের স্মৃতি হীরের চেয়েও মূল্যবান। তাঁর বাবা নেই কিন্তু স্মৃতিটা তো আছে,
এটা কিছুতেই বিক্রি করবো না।

বাবার এসব আদিখ্যেতা আর গেল না!

বাবা রেডিওটা সবসময় শেলফের উপর রাখেন। কিন্তু আজ ওটাকে ওখানে খুঁজে পেলাম না, শুধু ওখানেই নয়, ঘরের কোথাও রেডিওটা খুঁজে পেলাম না।

নিশ্চয়ই মা কোথাও রেখেছে। চেঁচিয়ে মা'কে
বললাম, মা বাবার রেডিওটা কোথায়?

ওটা তো তোর বাবা গতকাল বিক্রি করে দিয়েছে।

বিক্রি করে দিয়েছে মানে?

মা রান্নাঘর থেকে এসে বললেন, আরেহ, ওই পুরনো রেডিও বিক্রি করে আর হাতের জমানো কিছু টাকা দিয়েই তো তোর বাবা মোবাইলটা কিনে এনেছে।

আমি থমকে গেলাম হাতের মুঠোয় মোবাইলটা শক্ত করে ধরে বললাম, বাবার হাতের স্মৃতি হীরের চেয়েও মূল্যবান।
Previous
Next Post »